কোহলিকে সতর্ক করল ভারতীয় বোর্ড

0
28
কিছুদিন আগেই বিদেশি খেলোয়াড়দের যাঁরা পছন্দ করেন, তাঁদের দেশ ছেড়ে চলে যেতে বলেছিলেন ভারতের ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কথাবার্তায় সাবধান হতে কোহলিকে সতর্ক করে চিঠি পাঠিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রশাসক কমিটি

সামনেই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ। সেই সিরিজে সাফল্যের জন্য ভারতের সবচেয়ে বড় ভরসার নাম অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তাই তাঁর পূর্ণ মনোযোগ যেন ক্রিকেটেই থাকে, কোথাও বেফাঁস কোনো মন্তব্য করে যেন ফেঁসে না যান, এ কারণে কথাবার্তা বলার ব্যাপারে তাঁকে আরেকটু সতর্ক হতে বলেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রশাসকদের কমিটি। কোহলিকে আরেকটু নম্র-ভদ্র হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তাঁরা।

ভারতীয় দল অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশে রওনা দিয়েছে গত শুক্রবার। এর আগে প্রশাসকদের কমিটির একজন হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে কোহলিকে আরেকটু ভদ্র হওয়ার বিষয়টি জানান। তাঁর এক-দুই দিন পর কোহলিকে আনুষ্ঠানিকভাবে ফোন দেওয়া হয় কমিটির পক্ষ থেকে। এই বলে তাঁকে সতর্ক করা হয়, যেকোনো পরিস্থিতিতে তিনি যেন মেজাজ না হারান, তিনি যে ভারতের অধিনায়ক, বিষয়টা যেন তাঁর মাথায় থাকে। প্রশাসক কমিটির এক মুখপাত্র জানান, ‘কোহলিকে যেকোনো পরিস্থিতিতে মাথা ঠান্ডা রাখতে বলা হয়েছে। সেটা সংবাদ সম্মেলনে হোক, মাঠে খেলার সময় হোক, হোক দর্শকদের সঙ্গে কথাবার্তা বলার সময়।খবর যুগান্তরের।

কিছুদিন আগে নিজের জন্মদিন উপলক্ষে নিজের অফিশিয়াল অ্যাপের উদ্বোধন করেছেন কোহলি। নিজের অফিশিয়াল অ্যাপে একটি ভিডিও ছেড়েছিলেন তিনি। সেখানে এক ভক্তের মন্তব্য পড়ার পর তাঁকে দেশ ছেড়ে চলে যেতে বলেন ভারতের অধিনায়ক। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ নিয়ে হাস্যরস আর সমালোচনার শিকার হয়েছেন তিনি। সেই ভক্তের খুদে বার্তাটি ছিল এমন, ‘সে (কোহলি) অতি মূল্যায়িত ব্যাটসম্যান। তাঁর ব্যাটিংয়ে বিশেষ কিছু নেই। ভারতীয়দের তুলনায় আমার ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানদেরই বেশি ভালো লাগে।’ ভারতীয় অধিনায়ক এই খুদে বার্তার প্রতিক্রিয়ায় সেই ভক্তকে বলেন, ‘আমার মনে হয় না আপনার ভারতে থাকা উচিত। দেশ ছেড়ে অন্য কোথাও থাকুন। আমাদের দেশে থেকে কেন অন্য দেশকে ভালোবাসছেন? আমাকে পছন্দ করেন না, তাতে কিছু মনে করিনি। কিন্তু আমি মনে করি, এ দেশে থেকে আপনার অন্য দেশের কিছু পছন্দ করা উচিত না। আগে নিজের অগ্রাধিকার ঠিক করুন।’

ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ সব সময়ই উত্তেজনা ছড়ায়। ২০০৮ সালের ‘মাঙ্কিগেট’ কেলেঙ্কারিই তার জ্বলন্ত প্রমাণ। সেবার কথার লড়াইয়ে মেতেছিলেন হরভজন সিং আর অ্যান্ড্রু সাইমন্ডস। গত বছরও বিবাদে জড়িয়েছিলেন স্টিভেন স্মিথ আর বিরাট কোহলি। তাই অমন কোনো ঘটনা যেন এবার না ঘটে, আগেভাগেই সতর্ক থাকছে ভারতীয় বোর্ড।

LEAVE A REPLY