মহামারী রূপ নিচ্ছে ‘ফিফা ভাইরাস’

0
33

এখন পর্যন্ত ১৩ জন ফিফা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ক্রমেই লম্বা হচ্ছে এই লাইন। এবারের আগে ইউরোপিয়ান ফুটবলের বিরতিতে কেবল প্রীতি ম্যাচের আয়োজন দেখা যেত। ছিল না কোনো হিসাব-নিকাশ। যে কারণে দলগুলো খুব একটা গুরুত্ব দিয়ে মাঠে লড়ত না। দুই প্রতিপক্ষ যখন সেয়ানে সেয়ানে হতো, তখন হয়তো লড়াই একটু জমত। কিন্তু এখন পুরো ভিন্ন চেহারা।

এ বছর থেকে উয়েফা ন্যাশনস লিগের আদলে নতুন একটা প্রতিযোগিতামূলক টুর্নামেন্ট শুরু করেছে ফিফা। যেখানে ভালো করলে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য মিলবে আগাম সুখবর। এমন একটা শর্ত জুড়ে দেওয়ার পর কারও বসে থাকার উপায় আছে! রাতদিন অনুশীলন করে মাঠে নামা, সেই সঙ্গে জয়ের পিছু নিতে গিয়ে একের পর এক চোটের ছোবল খাওয়া। ফুটবল বোদ্ধারা এর নতুন নাম দিয়েছেন ‘ফিফা ভাইরাস’।খবর সমকাল ।

এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিভিন্ন দেশের তারকা খেলোয়াড়দের এখন নিজের ক্লাব ফুটবল দেখতে হবে সাইড বেঞ্চে বসে। সবচেয়ে বেশি এই ভাইরাস ধরা পড়েছে প্রিমিয়ার লিগের অন্যতম ফেভারিট লিভারপুল ফুটবলারদের মধ্যে। সেন্টার ব্যাক ভার্জিল ফন ডিক, মিডফিল্ডার নেভি কেইতা, ফরোয়ার্ড মোহামেদ সালাহ এবং সাদিও মানের মতো প্রথম সারির তারকা ইনজুরি নিয়ে ফিরেছে ইংল্যান্ডে।

এমনিতেই অ্যালেক্স অক্সলেইড চেম্বারলেইন দীর্ঘদিন ধরে মাঠের বাইরে। তার পরিবর্তে কয়েক দিন আগে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে ইয়ুর্গেন ক্লপ নামান জেমস মিলনারকে। আন্তর্জাতিক বিরতিতে দেশের হয়ে খেলতে গিয়ে তিনিও চোটে পড়েছেন।

গত শনিবার সুদানের বিপক্ষে ৩-০ গোলে জয় পায় সেনেগাল। ওই ম্যাচে বাঁ হাতে মারাত্মক আঘাত পান মানে। মাঠ ছেড়ে যাওয়ার পর তড়িঘড়ি করে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে হাত এক্সরে করার পর ধরা পড়ে চিড়। কতদিন তাকে মাঠের বাইরে থাকতে হবে এখনও স্পষ্ট করে জানা যায়নি। তবে এ সপ্তাহে হার্ডাসফিল্ডের বিপক্ষে ম্যাচ রয়েছে অল রেডসদের। সে ম্যাচে তিনি থাকছেন না নিশ্চিত। মানে ছাড়াও এ ম্যাচে দেখা যাবে না মিসরীয় সেনসেশন সালাহকে। সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে খেলতে নেমে চোট পান তিনি। কেইতা এখনও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করাননি। লিভারপুলে ফিরে তিনি চিকিৎসকের শরণাপন্ন হবেন। তখন জানা যাবে তার চোটের অবস্থা।

গত মঙ্গলবার আফ্রিকান নেশন্স কাপের বাছাই পর্বে রুয়ান্ডার বিপক্ষে খেলতে নেমে হ্যামস্ট্রিংয়ের ইনজুরিতে পড়েন এই গিনি ফুটবলার। ভার্জিলের চোট একটু পুরনো। কিন্তু সেই চোট পেকে গেছে দেশের হয়ে খেলতে নেমে। পাঁজরের ব্যথাটা বেড়েছে। এখনও তার বিষয়ে খারাপ খবর আসেনি। তবে লিভারপুল কোচ বোধ হয় তাকে নিয়ে ঝুঁকি নেবেন না।

এদিকে সুপার ক্ল্যাসিকোতে অংশ নিতে গিয়ে চোটে পড়েছেন আর্জেন্টিনার জুভেন্তাস তারকা পাওলো দিবালা। ব্রাজিলের বিপক্ষে হাঁটুতে আঘাত পান তিনি। যদিও তার ইনজুরি খুব একটা মারাত্মক নয়। তবু চিন্তার বিষয় জুভ কোচ অ্যালেগ্রির জন্য। একই দিন চোট পেয়েছেন সেলসাও তারকা দানিলো। চোট যেন তার নিত্যসঙ্গী। মৌসুমের প্রায় সময় ইনজুরির বৃত্তে ঢুকতে হয় তাকে। চলমান মৌসুমে মাত্র ম্যানচেস্টার সিটির হয়ে একটি ম্যাচে অংশ নিয়েছেন। মঙ্গলবার রাতে সৌদির জেদ্দায় আর্জেন্টিনার সঙ্গে খেলতে নেমে পায়ের গোড়ালিতে চোট পান তিনি।

এই ক’জন তারকা খেলোয়াড় ছাড়াও আন্তর্জাতিক বিরতিতে দেশের হয়ে খেলতে গিয়ে চোটের কবলে পড়েছেন বার্সেলোনার বেলজিয়াম ডিফেন্ডার থমাস ভার্মেলেন, বায়ার্ন মিউনিখের রক্ষণভাগের জার্মান স্টার জেরোমে বোয়েটাং, চেলসির অ্যান্তোনিও রুডিজার, ইন্টার মিলানের মাতিয়াস ভেসিনো এবং টটেনহামের দ্যানি রোজ।

LEAVE A REPLY