গণপিটুনিতে দুই ব্যক্তি নিহত

0
126

চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলায় গণপিটুনিতে দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। চুরির অভিযোগে তাঁদের গণপিটুনি দেওয়া হয়। শুক্রবার ভোরে উপজেলার পাহাড়তলী ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের উনসত্তরপাড়া গ্রামে এই গণপিটুনির ঘটনা ঘটে।  খবর প্রথম আলো ।

রাউজান থানার পুলিশ শুক্রবার বেলা দুইটার দিকে দুজনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠিয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে দুটি অস্ত্রও উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত দুই ব্যক্তি হলেন পাহাড়তলি ইউনিয়নের খানপাড়া গ্রামের মো. মোক্তার (২৮) ও মো. সাইফুল (২৭)।

থানা-পুলিশ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও ভুক্তভোগী পরিবারের সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার ভোর চারটার দিকে সিরাজ কলোনির ভাড়াটিয়া আদিনাথের দাশ ও শাহ আলমের বাড়ির লোকজন চোর চোর বলে চিৎকার দেন। এ সময় স্থানীয় লোকজন জড়ো হয়ে মোক্তার ও সাইফুলকে ধরে ফেলেন। এ সময় অন্য কয়েকজন পালিয়ে যায়। আটক দুজনকে গণপিটুনি দিয়ে পাশের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের গৌরশংকর হাটে নিয়ে যান স্থানীয় লোকজন । সেখানে দ্বিতীয় দফায় পিটুনি দিলে তাঁরা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

সিরাজ কলোনির ভাড়াটিয়া আদিনাথের স্ত্রী শিল্পীনাথ বলেন, ‘ভোর চারটার দিকে আমাদের ঘরে চোরের দল প্রবেশ করার চেষ্টা করে। আমরা চিৎকার দিলে বাইরে থেকে দরজা লাগিয়ে তারা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।’ শাহ আলমের মেয়ে ঝুমা আক্তার বলেন, ‘ভোরে চোর দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে। চোর চোর বলে চিৎকার করলে আমার ছোট ভাই রিমনকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে। আমাদের চিৎকারে স্থানীয় জনতা ধাওয়া করলে তারা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে পুকুরে পড়ে যায়। স্থানীয় জনতা তাদের আটক করে নিয়ে যায়।’
পাহাড়তলী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রোকন উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, চুরিতে অতিষ্ঠ হয়ে স্থানীয় লোকজন দীর্ঘদিন ধরে পাহারা দিচ্ছিল। শুক্রবার ভোরে দুজনকে চুরি করার সময় আটক করে গণপিটুনি দিলে তাঁদের মৃত্যু হয়।

রাউজান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কেপায়েত উল্লাহ বলেন, গণপিটুনিতে নিহত দুজনের মধ্যে সাইফুলের বিরুদ্ধে চুরি ও ইয়াবা পাচারের মামলা রয়েছে। মোক্তারের বিরুদ্ধে সিএনজিচালিত অটোরিকশা চুরির মামলা রয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY