মালয়েশিয়ায় সমকামিতার দায়ে দুই নারীকে বেত্রাঘাত ও অর্থদণ্ড

0
149

মালয়েশিয়ায় সমকামিতার দায়ে দুই নারীকে শাস্তি দেওয়া হয়েছে। এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, গতকাল সোমবার সকালে ওই দুই নারীকে ইসলামি আইন অনুযায়ী বেত্রাঘাতের আদেশ দেন দেশটির শরিয়া আদালত। মানবাধিকারকর্মীরা বলছেন, মালয়েশিয়ার ইতিহাসে নারী সমকামীদের এটাই প্রথম কোনো শাস্তির ঘটনা্‌  খবর প্রখম আলো

সকাল ১০টায় বিচারক রায় ঘোষণার পরপরই ওই দুই নারীকে আদালত চত্বরে আনা হয় এবং ছয়টি করে বেত্রাঘাত দেওয়া হয়। সেখানকার একজন আদালত প্রতিবেদক এএফপিকে বলেন, ঘা দেওয়ার সময় কমবয়সী নারী ফোঁপাতে থাকেন। তবে মধ্যবয়সী নারী কোনো প্রতিক্রিয়া দেখাননি।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, সাদা পোশাক ও হিজাব পরিহিত ওই দুই নারী শাস্তি কার্যকর করার সময়ে নিচু চৌকিতে বসে ছিলেন। তবে ওই দুই নারীর নাম প্রকাশ করেনি দেশটির সরকার। তাঁদের একজনের বয়স ২২ আর অপরজনের ৩২ বছর।

দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ তেরেঙ্গানুর রাজধানী কুয়ালার শরিয়া হাইকোর্ট এই রায় দেন। পাশাপাশি ওই দুই নারীকে ৩ হাজর ৩০০ রিঙ্গিত জরিমানা করা হয়। বাংলাদেশি মুদ্রামানে এর পরিমাণ দাঁড়ায় ৬৭ হাজার টাকার একটু বেশি।

গত এপ্রিল মাসে দেশটির আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকরী বাহিনীর ইসলামিক শাখার সদস্যরা তাঁদের তেরেঙ্গানুর একটি আড্ডাস্থল থেকে আটক করে। তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, আটকের সময় ওই দুই নারীকে প্রাইভেটকারে আপত্তিকর অবস্থায় পাওয়া যায়। মালয়েশিয়ার রক্ষণশীল জায়গাগুলোর মধ্যে তেরেঙ্গানু অন্যতম।

মালয়েশিয়ায় দুই ধরনের আদালত রয়েছে। এর মধ্যে ইসলামিক আদালত মুসলিম নাগরিকদের ধর্মীয় ও পারিবারিক বিষয়গুলো দেখাশোনা করেন।

তবে মানবাধিকার সংগঠনগুলো এ শাস্তিকে ‘অমানবিক ও অপমানজনক’ বলে নিন্দা জানিয়েছে। প্রতিবাদকারীরা বলছেন, মালয়েশিয়ার ইতিহাসে নারী সমকামিতার (লেসবিয়ান) অপরাধে এটাই প্রথম কোনো শাস্তির ঘটনা। তাঁদের মতে, মালয়েশিয়ার এই ঘটনা আবার জানান দিল, মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশগুলোয় সমকামীদের কী করুণ অবস্থা।

LEAVE A REPLY